শিবচরে মহাসড়কে তরুনীর ক্ষত বিক্ষত লাশের পরিচয় শনাক্ত করলো পিবিআই, হত্যার শংকা

শিবচর বার্তা ডেক্স :
ঢাকা-ভাঙ্গা এক্সপ্রেস হাইওয়ের মাদারীপুরের শিবচরে রুমি আক্তার (২৫) নামে এক তরুণীর ক্ষত বিক্ষত মরদেহ উদ্ধার করেছে হাইওয়ে পুলিশ। মরদেহটি ক্ষতবিক্ষত থাকায় প্রথমে পরিচয় সনাক্ত করতে পারেনি পুলিশ। পরে পিবিআই সদস্যরা এসে বুধবার দুপুরে মরদেহের পরিচয় শনাক্ত করে। নিহত রুমি পাঁচ্চরের একটি প্রাইভেট হাসপাতালে কর্মস্থলে যাওয়ার পর এ ঘটনা ঘটে বলে পরিবারের সদস্যরা দাবী করেছে।
শিবচর হাইওয়ে থানা সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ের মাদারীপুরের শিবচরের মুন্সিরবাজার সংলগ্ন ৪নং ব্রিজের কাছে মঙ্গলবার রাতে এক তরুনীর লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয় স্থানীয়রা। পরে শিবচর হাইওয়ে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌছে মরদেহটি উদ্ধার করে। মরদেহের শরীরে ক্ষতবিক্ষত থাকায় প্রথমে পরিচয় শনাক্ত করতে পারেনি পুলিশ। পরে বুধবার দুপুরে পিবিআই সদস্যরা এসে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় নিহতের পরিচয় শনাক্ত করে। নিহত রুমি আক্তার উপজেলার পাঁচ্চর ইউনিয়নের হোগলার মাঠ এলাকার সোহরাব বেপারীর মেয়ে। পরিবারের লোকজন বিষয়টিকে নিছক দুর্ঘটনা নয় বলে জানান।
নিহত তরুনীর এক চাচা বলেন, রুমি পাঁচ্চরে একটি প্রাইভেট হাসপাতালে চাকুরী করতো। সে উদ্দেশ্যেই মঙ্গলবার বিকেলে সে নাইট ডিউটি করার জন্য হাসপাতালে যায়। এরপর আমরা আজ তার মৃত্যুর খবর পাই। লাশের ধরন দেখে মনে হয়েছে এটি নির্মম হত্যাকান্ড। যেখানে লাশ পাওয়া গিয়েছে সেখানে তার যাওয়ার কথা নয় এবং সেই স্থান তার যাত্রাপথও নয়। তার সাড়ে ৩ বছরের যমজ দুই ছেলে ও স্বামী রয়েছে।
শিবচর হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মো.শাকিল আহমেদ বলেন, ‘ক্ষত বিক্ষত মরদেহটি ঢাকাগামী লেন থেকে উদ্ধার করা হয়। তবে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত নয় বলে আমাদের কাছেও সন্দেহ হচ্ছে। মরদেহটির শরীরের চিহ্ন গাড়ি চাপায় আঘাতের মতো নয়। প্রথমে পরিচয় শনাক্ত না হলেও পরে পিবিআই সদস্যরা এসে লাশের পরিচয় শনাক্ত করেছে। লাশটি ময়না তদন্তের জন্য মাদারীপুর মর্গে প্রেরন করা হয়েছে।