প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে চীফ হুইপ লিটন চৌধুরীর পক্ষ থেকে শিবচরে দুই রেল স্টেশনসহ কয়েকটি স্পটে হাজার হাজার মানুষের ঢল

শিব শংকর রবিদাস, মোহাম্মদ আলী মৃধা, মো: মনিরুজ্জামান মনির, মো: আবু জাফর ও অপূর্ব দাস :
মঙ্গলবার মুন্সিগঞ্জের মাওয়া থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী ট্রেনটি বর্ণিল সাজে সজ্জিত হয়ে আসে মাদারীপুরের শিবচরে। এ সময় জাতীয় সংসদের চীফ হুইপ স্থানীয় সাংসদ নূর-ই-আলম চৌধুরীর পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের স্বাগত জানায় হাজার হাজার শিবচরবাসী। আজ মঙ্গলবার (১০ অক্টোবর) দুপুর ১২টা ২৪ মিনিটে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া স্টেশন থেকে ঢাকা-ভাঙ্গা রেলপথের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।
উদ্বোধনের পর দুপুর ১২টা ৫৫ মিনিটের দিকে মাওয়া স্টেশন থেকে প্রধানমন্ত্রী ট্রেনের টিকিট কাটেন। এ সময় তাঁর ছোটবোন শেখ রেহানা ও তাঁদের পরিবারের তিন শিশু সদস্য সেখানে উপস্থিত ছিল। সেই ট্রেনে চড়ে পদ্মা সেতু পাড়ি দিয়ে পদ্মা ও শিবচর স্টেশন হয়ে ভাঙ্গা রেলওয়ে জংশনে যান তাঁরা।
প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে শিবচরেও ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করে আওয়ামী লীগ। শিবচরের দুটি রেল স্টেশন, আড়িয়াল খাঁ সেতু,পাচ্চরসহ পুরো এলাকা বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রীর ছবি সংবলিত ব্যানার, ফেস্টুন, পোস্টারে সাজানো হয়। বিভিন্ন স্থানে রং-বেরঙের বিশালাকার নৌকা প্রতীকও আলাদাভাবে শোভাবর্ধন করে।
আজ সকাল থেকেই শিবচর উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষ দলে দলে মিছিল সহকারে আসতে শুরু করে স্টেশনগুলোতে। প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী ট্রেনটি পদ্মা ও শিবচর স্টেশন অতিক্রমকালে সর্বত্র ছিল লোকে লোকারণ্য।
যখন ট্রেনটি পদ্মা ও শিবচর স্টেশন অতিক্রম করছিল তখন হাজার হাজার মানুষ স্টেশনে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের স্বাগত জানান। এ সময় শ্লোগানে শ্লোগানে মুখর হয়ে উঠে গোটা এলাকা।
পদ্মা সেতু হয়ে প্রধানমন্ত্রীর ট্রেন চলাচল উদ্বোধন উপলক্ষে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টনী তৈরি করা হয়।
শিবচর উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারন সম্পাদক ডা: মো: সেলিম বলেন, দক্ষিন পশ্চিমাঞ্চলের মানুষ যেটা কোনদিন স্বপ্নেও ভাবেনি সেই পদ্মা সেতু আজ বাস্তব। পদ্মা সেতুর উপর দিয়ে রেল চলাচল এটা আমাদের কল্পনাতীত ছিল। সেই রেলও আজ বাস্তব। এদেশের মানুষ আজ অত্যান্ত আনন্দিত।
মাদারীপুর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মুনির চৌধুরী বলেন, চীফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরীর পক্ষ থেকে শিবচরে আজ হাজার হাজার মানুষ যে যেখানে দাঁড়ানোর জায়গা পেয়েছে সেখান থেকেই প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানিয়েছে। দক্ষিন পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের জন্য আজকে একটি অনন্য দিন। কারন এই দিনের স্বপ্ন তারা দীর্ঘদিন দেখে আসছে। জননেত্রী শেখ হাসিনার মাধ্যমে সেই স্বপ্ন আজ বাস্তবে রুপ নিলো। দক্ষিন পশ্চিমাঞ্চলের ২১ টি জেলার মানষই আজ খুশি।