আধিপত্য বিস্তার ও পূর্ব শত্রুতার জের : মাদারীপরে দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরো এক জনের মৃত্যু, আটক ৯

Murder Julfikar PicMurder Babul Munshi PicRajoir 2 murder

রাজৈর প্রতিনিধি :
মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার হরিদাসদী- মহেন্দ্রদী ইউনিয়নের উত্তর হোসেনপুর গ্রামে আধিপত্য বিস্তার ও পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শুক্রবার দুই পক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনায় জুলফিকার খালাশী (৫৫) নামে আরো একজনের মৃত্যু হয়েছে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার ভোররাতে তার মৃত্যু হয়। সে একই এলাকার রজব আলী খালাশীর ছেলে। এসংঘর্ষে মারাত্মক আহত বাবুল মুন্সী (৩৫) গত ১০ জানুয়ারী শুক্রবার দুপুরে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় । সে একই গ্রামের মজিদ মুন্সীর ছেলে । এদিকে এ সংঘর্ষে আহত কহিনুর খালাশী (৪০) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আশংকাজনক অবস্থায় মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। আহত অন্তত ২০ জন বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এদিকে মৃত্যুর সংবাদ এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে আবারও উত্তেজনা শুরু হলে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করে পরিস্থিতি শান্ত করা হয়। এদিকে শনিবার সকালে খুনীদের ফাঁসির দাবীতে এলাকার নারী, পুরুষ ও শিশুরা বিক্ষোভ মিছিল করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার উত্তর হোসেনপুর গ্রামে আধিপত্য বিস্তার ও পূর্ব শত্রুতার জের ধরে দীর্ঘদিন যাবত এলাকার দুটি পক্ষ দেলোয়ার মেম্বার ও মহর আলী খালাসীর মধ্যে বিবাদ চলে আসছিল । কিছুদিন পূর্বে মহর আলী খালাসী মারা যাওয়ায় তার ভাই জামাল খালাসী দলের নেতৃত্ব দিয়ে আসছিল। বৃহস্পতিবার সকালে দেলোয়ার মেম্বারের পক্ষের কয়েক যুবক মিলে এলাকার জঙ্গল পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা করার নামে দা ও ছ্যান নিয়ে বের হয় এবং চাঁদের বাজারে মৃত আবু মোল্লার বাড়ীতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট করে। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে দু পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা চলতে থাকে। এ ঘটনার জের ধরে দেলোয়ার মেম্বারের লোকজন শুক্রবার সকালে মহর আলীর বাড়ীতে হামলা চালায়। এ সময় মৃত মহর আলী খালাসীর ভাই জামাল খালাসী লোকজন নিয়ে বাধা দিতে গেলে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। উভয় পক্ষই দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এ সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ২০জন আহত হয় । আহতদের মধ্যে কহিনুর খালাসী (৪০) , জুলফিকার খালাসী (৫৫), সজিব মুন্সী (২২), সিরাজ খালাসী (৩৫), বাবুল মুন্সী (৩৫), হাসান মাহমুদ (২৭), দেলোয়ার মুন্সী (৩০), এনামুল মুন্সী (৪০) ও রিপন মুন্সীকে (৪৫) রাজৈর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল । বাকী আহতরা স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়েছে। আহতদের মধ্যে অবস্থার অবনতি হওয়ায় কহিনুর খালাসী, জুলফিকার খালাসী, সিরাজ খালাসী, বাবুল মুন্সী ও হাসান মাহমুদ এই ৫জনকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছিল । সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার দুপুর ২ টার দিকে বাবুল মুন্সী মারা যায়। এরপর জুলফিকার খালাসী ও কহিনুর খালাসীর অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাদেরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয় এবং শনিবার ভোর রাতে জুলফিকার খালাসীর মৃত্যু ঘটে। এছাড়াও কহিনুর খালাসী মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।
এঘটনায় আরো সংঘর্ষ হতে পারে আশংকায় পুলিশ এ পর্যন্ত মোট ৯ জনকে আটক করেছে।

মৃত মহর আলীর স্ত্রী ও সংরক্ষিত ১ নং আসনের সদস্যা রেহানা বেগম জানান, আমার পরিবারকে নিশ্চিহ্ন করতে তারা পরিকল্পিতভাবে হামলা চালিয়েছে। আমার ছেলে সোহগকেও তারা হত্যার উদ্যেশ্যে খোজাখুজি করেছে। তাদের পক্ষে কিছু বৃদ্ধ ও প্রতিবন্ধী আছে। তাদেরকে দিয়ে প্রতিপক্ষরা যে কোন অঘটন ঘটিয়ে আমাদের বিরুদ্ধে মামলা দিতে পারে ।
এদিকে শনিবার দুপুর ২ টার দিকে বাবুল মুন্সীর লাশ এলাকায় আনা হলে এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারনা ঘটে। কান্নায় আকাশ বাতাস ভারী হয়ে আসছিল। নতুন করে আর কোন দূর্ঘটনা যাতে না ঘটে সেজন্য অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(প্রশাসন ও অপরাধ ) উত্তম প্রসাদ পাঠক, সহকারী পুলিশ সুপার(সার্কেল) আবির হাসান ও পুলিশের একাধিক টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে এবং এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।
রাজৈর থানার ওসি খোন্দকার শওকত জাহান জানান, সংশ্লিষ্ট এলাকার শান্তি রক্ষায় পুলিশ মোতায়েন আছে । রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কোন অভিযোগ দায়ের হয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Free WordPress Themes - Download High-quality Templates